সর্বশেষ
Home / মানবাধিকার / সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীকে নির্যাতনের কারণে আব্দুল হামিদের বিরুদ্ধে মামলা

সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীকে নির্যাতনের কারণে আব্দুল হামিদের বিরুদ্ধে মামলা

2617স্টাফ রিপোর্টার:সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীকে নির্যাতনের কারণে আব্দুল হামিদের বিরুদ্ধে মামলা ,গত ১৬/০৮/২০১৭ ইং তারিখে সিটিজি পোস্ট অনলাইন পত্রিকায় “কুষ্টিয়া মিরপুরের গোপিনাথপুর গ্রামের সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ আব্দুল হামিদ কুমার নদী দখল করে মাছ চাষ করছে” শিরোনামে নিউজ প্রকাশিত হওয়ায় ৩১/০১/২০১৮ ইং তারিখে ২য় বারের মত হামলা করে সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ আব্দুল হামিদসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা। রফিকুল ইসলাম এশিয়া ছিন্নমূল মানবাধিকার বাস্তবায়ন ফাউন্ডেশনের কুষ্টিয়া জেলা উপ-পরিচালক এবং জাতীয় পত্রিকা “দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ” ও “দৈনিক বিশ্লেষণ” এর কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি, অনলাইন টিভি চ্যানেল “প্রোটিভি বাংলা” এর স্টাফ রিপোর্টার (কুষ্টিয়া), “সিটিজি পোস্ট” এর মিরপুর প্রতিনিধি, অনলাইন পত্রিকা “ক্রাইম পেট্রোল ২৪” এর স্টাফ রিপোর্টার (কুষ্টিয়া) হিসেবে কর্মরত আছেন।

তিনি গত ৩১/০১/২০১৮ ইং তারিখ বুধবার আনুমানিক বিকেল ৪.৩০ ঘটিকার সময় পত্রিকা অফিসের কাজ শেষে তার নিজ গ্রাম গোপিনাথপুর বাজারে পৌঁছালে ওত পেতে থাকা সন্ত্রাসী আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে অন্যান্য সন্ত্রাসীগণ সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী রফিকুল ইসলামকে টানা হেঁচড়া করে সন্ত্রাসী আব্দুল হামিদের অফিসের মধ্যে নিয়ে যায়। সন্ত্রাসী আব্দুল হামিদ এর নির্দেশে সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী রফিকুল ইসলামকে অফিসের মধ্যে আটকিয়ে দেশীয় অস্ত্র, রামদা. লাঠিসোটা, হাসুয়া, লোহার রড, ও বাঁশের লাঠি ইত্যাদি ধরে ১নং আসামী রাহেন মন্ডলের ছেলে সন্ত্রাসী আব্দুল হামিদ রফিকুল ইসলামের পকেটে থাকা নগদ ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। ২নং আসামি মৃত সোলাইমান মন্ডলের ছেলে হাসেম আলী স্যমসাং এস ২৫০ মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়, ৩নং আসামি মৃত কছের আলীর ছেলে মনিরুজ্জামান মনি স্যমসাং গ্যালাক্সি জে-৭ মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয় এবং ৪নং আসামি মৃত ইবাদত মন্ডলের ছেলে মিকরাইল হোসেন (বুড়ো) আইডি কার্ড ছিনিয়ে নেয়।

অতপর সন্ত্রাসী আব্দুল হামিদ রামদার উল্টোপাট দিয়ে বামপায়ের হাঁটুর গিরার নিচে মেরে গুরুতর ও হাড় ভাঙা জখম করে ডান পায়ের হাঁটুর উপরে লোহার হাতুড়ি দিয়ে মারপিট করে জখম করে। সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী রফিকুল ইসলাম মাটিতে পড়ে গেলে মৃত সোলাইমান মন্ডলের ছেলে তার হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে রফিকুল ইসলামের শরীরের বিভিন্ন অংশে মারপিট করে নিলাফোলা জখম করে। মৃত কছের মন্ডলের ছেলে মনিরুজ্জামান মনি তার হাতে থাকা বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি মারপিট করে গুরুতর নিলাফোলা জখম করে।

সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী রফিকুল ইসলাম সোর চিৎকার করলে ঘটনাস্থলে স্থানীয় লোকজন উপস্থিত হলে আসামিগণ হুমকিদিয়া বলে যে, কোনপ্রকাম মামলা মোকদ্দমা করলে তোকে জানে মেরে ফেলব এবং তোর বাড়ি-ঘর পেট্রোল দিয়ে আগুন জ্বালিয়ে দিব এবং জমিজমা সব দখল করে নেব। অতঃপর সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী রফিকুল ইসলামকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হারদি, আলমডাঙ্গা, চুয়াডাঙ্গাতে ভর্তি করা হয়। তিনি দীর্ঘ ১২দিন উক্ত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা গ্রহণ করেন।

এ বিষয়ে সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী রফিকুল ইসলাম “মোকাম কুষ্টিয়ার বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে” মামলা দয়ের করেন। মামলা নং- মিরপুর সিআর ৬৭/২০১৮ এবং তারিখ ০৪/০৩/২০১৮ ইং। এ মামলার বিষয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন তদন্তের দায়িত্ব পায় এবং ১৩/০৩/২০১৮ ইং তারিখ মঙ্গলবার মামলার তদন্ত কাজ সম্পন্ন করেন। উল্লেখ্য এর আগেও সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ আব্দুল হামিদ সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী রফিকুল ইসলামের ওপর একবার হামলা করেছিল। এই মামলায় সন্ত্রাসী আব্দুল হামিদকে ১নং আসামি করে ৪জনসহ আরও অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করা হয়।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

সময় খুব কম, দেরি করা যাবে না: ড. কামাল

জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত আইনজীবীদের মহাসমাবেশে যোগ দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছেন গণফোরামের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *