সর্বশেষ
Home / অর্থনীতি / ‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা-২০১৭’ পেল ১১ গুণী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান

‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা-২০১৭’ পেল ১১ গুণী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান

1499268319_7অর্থনৈতিক রিপোর্টার : মার্কেন্টাইল ব্যাংক এ বছর ১১ গুণী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ ‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা ২০১৭’ প্রদান করেছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশের সাতজন গুণী ব্যক্তি, তিনটি প্রতিষ্ঠান ও একটি গ্রামকে এ সম্মাননা দেয়া হয়।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। সম্মাননাপ্রাপ্ত গুণীজন ও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের হাতে স্বর্ণপদক, সম্মাননা স্মারক ও চেক তুলে দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, এমপি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। এতে সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান শহিদুল আহ্সান এবং স্বাগত বক্তব্য দেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কাজী মসিহুর রহমান।
‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা পাওয়া গুণীজন ও প্রতিষ্ঠানসমূহ – মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণায় মফিদুল হক, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে কবি আসাদ চৌধুরী, সংস্কৃতিতে ছায়ানট, শিক্ষায় ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, চিকিৎসায় ডা. সামন্ত লাল সেন, সাংবাদিকতায় ইকবাল সোবহান চৌধুরী, অর্থনীতি ও অর্থনীতি বিষয়ক গবেষণায় ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, শিল্প ও বাণিজ্যে সালাহউদ্দিন আলমগীর (সিআইপি), বিজ্ঞান ও প্রযু্িক্ততে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন, সমাজ বিনির্মাণে সূচনা ফাউন্ডেশন এবং ক্রীড়ায় (ফুটবল) কলসিন্দুর গ্রাম।
তোফায়েল আহমেদ বলেন, সম্মাননাপ্রাপ্ত প্রত্যেককেই নিজ নিজ ক্ষেত্রে অত্যন্ত সফল, দায়িত্বশীল ও শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব বলে উল্লেখ করেন। সর্বশেষ সরকারের জাতীয় বাজেটকে চমৎকার ও গণমুখী উল্লেখ করে এর মাধ্যমে যথার্থ অর্থনৈতিক উন্নয়নের আশাবাদ ব্যক্ত করেন এবং ২০০৮ সালে ঘোষিত ‘রুপকল্প ২০২১’ বাস্তবায়নে দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত করেন।
বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির তাঁর বক্তব্যে বন্যাকবলিত বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলে ঋণ আদায় সাময়িক স্থগিত করণের নির্দেশ উল্লেখ করে তা কার্যকর করতে বলেন। একই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে সিএসআর কার্যক্রম বৃদ্ধি, সহজ শর্তে ঋণ প্রদান ও সার্টিফিকেট মামলা না করার আহŸান করেন। তিনি সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস (এসডিজি) অর্জনের লক্ষে উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে পরামর্শ দেন এবং ব্যাংকিং খাতে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে খেলাপি ঋণ কমিয়ে আনার আহŸান জানান।
ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মসিহুর রহমান খেলাপী ঋণ হ্রাস ও গ্রাহক সেবার মান উন্নয়নে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের বিশেষ সফলতার কথা উল্লেখ করেন। তিনি সিএসআর সহ চলমান বিভিন্ন কার্যক্রম উল্লেখ করে ব্যাংকের সার্বিক অবস্থা বর্ননা করেন। সম্মাননাপ্রাপ্ত গুণীজন, আমন্ত্রীত অতিথি এবং প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকসহ সকলকে ধন্যবাদ ও বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান।
‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা ২০১৭’ প্রদান ও ব্যাংকের ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান এ. কে. এম. সাহিদ রেজা, নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান ড. মাহমুদ ওসমান ইমাম, মার্কেন্টাইল ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও ব্যাংকের পরিচালক- আলহাজ্ব আকরাম হোসেন (হুমায়ুন), পরিচালক – এ.এস.এম. ফিরোজ আলম, মোরশেদ আলম এমপি ও আলহাজ্ব মোশাররফ হোসেন।
আরও উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের উদ্যোক্তা, শেয়ারহোল্ডার, অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক, উর্ধ্বতন নির্বাহী, গ্রাহক ও অতিথিসহ প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে ছিল মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, এমপি ও জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়ের আবৃত্তি, যন্ত্রসঙ্গীত এবং লেজার শো আমন্ত্রিত অতিথিদের মুগ্ধ করে।অর্থনৈতিক রিপোর্টার : মার্কেন্টাইল ব্যাংক এ বছর ১১ গুণী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ ‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা ২০১৭’ প্রদান করেছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশের সাতজন গুণী ব্যক্তি, তিনটি প্রতিষ্ঠান ও একটি গ্রামকে এ সম্মাননা দেয়া হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।
সম্মাননাপ্রাপ্ত গুণীজন ও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের হাতে স্বর্ণপদক, সম্মাননা স্মারক ও চেক তুলে দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, এমপি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। এতে সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান শহিদুল আহ্সান এবং স্বাগত বক্তব্য দেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কাজী মসিহুর রহমান। ‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা পাওয়া গুণীজন ও প্রতিষ্ঠানসমূহ – মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণায় মফিদুল হক, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে কবি আসাদ চৌধুরী, সংস্কৃতিতে ছায়ানট, শিক্ষায় ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, চিকিৎসায় ডা. সামন্ত লাল সেন, সাংবাদিকতায় ইকবাল সোবহান চৌধুরী, অর্থনীতি ও অর্থনীতি বিষয়ক গবেষণায় ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, শিল্প ও বাণিজ্যে সালাহউদ্দিন আলমগীর (সিআইপি), বিজ্ঞান ও প্রযু্িক্ততে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন, সমাজ বিনির্মাণে সূচনা ফাউন্ডেশন এবং ক্রীড়ায় (ফুটবল) কলসিন্দুর গ্রাম। তোফায়েল আহমেদ বলেন, সম্মাননাপ্রাপ্ত প্রত্যেককেই নিজ নিজ ক্ষেত্রে অত্যন্ত সফল, দায়িত্বশীল ও শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব বলে উল্লেখ করেন। সর্বশেষ সরকারের জাতীয় বাজেটকে চমৎকার ও গণমুখী উল্লেখ করে এর মাধ্যমে যথার্থ অর্থনৈতিক উন্নয়নের আশাবাদ ব্যক্ত করেন এবং ২০০৮ সালে ঘোষিত ‘রুপকল্প ২০২১’ বাস্তবায়নে দৃঢ় সংকল্প ব্যক্ত করেন।
বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির তাঁর বক্তব্যে বন্যাকবলিত বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলে ঋণ আদায় সাময়িক স্থগিত করণের নির্দেশ উল্লেখ করে তা কার্যকর করতে বলেন। একই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে সিএসআর কার্যক্রম বৃদ্ধি, সহজ শর্তে ঋণ প্রদান ও সার্টিফিকেট মামলা না করার আহŸান করেন। তিনি সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস (এসডিজি) অর্জনের লক্ষে উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ বাড়াতে পরামর্শ দেন এবং ব্যাংকিং খাতে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে খেলাপি ঋণ কমিয়ে আনার আহŸান জানান। ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মসিহুর রহমান খেলাপী ঋণ হ্রাস ও গ্রাহক সেবার মান উন্নয়নে মার্কেন্টাইল ব্যাংকের বিশেষ সফলতার কথা উল্লেখ করেন।
তিনি সিএসআর সহ চলমান বিভিন্ন কার্যক্রম উল্লেখ করে ব্যাংকের সার্বিক অবস্থা বর্ননা করেন। সম্মাননাপ্রাপ্ত গুণীজন, আমন্ত্রীত অতিথি এবং প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকসহ সকলকে ধন্যবাদ ও বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান। ‘মার্কেন্টাইল ব্যাংক সম্মাননা ২০১৭’ প্রদান ও ব্যাংকের ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান এ. কে. এম. সাহিদ রেজা, নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সেলিম, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান ড. মাহমুদ ওসমান ইমাম, মার্কেন্টাইল ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও ব্যাংকের পরিচালক- আলহাজ্ব আকরাম হোসেন (হুমায়ুন), পরিচালক – এ.এস.এম. ফিরোজ আলম, মোরশেদ আলম এমপি ও আলহাজ্ব মোশাররফ হোসেন। আরও উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের উদ্যোক্তা, শেয়ারহোল্ডার, অতিরিক্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক, উর্ধ্বতন নির্বাহী, গ্রাহক ও অতিথিসহ প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।
অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে ছিল মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, এমপি ও জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়ের আবৃত্তি, যন্ত্রসঙ্গীত এবং লেজার শো আমন্ত্রিত অতিথিদের মুগ্ধ করে।
প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

IMG_2051

কেসিসি মেয়র এর সাথে এনইউবিটি খুলনার শব্দ দূষন ও প্রতিকার বিষয় সেমিনার

নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি খুলনাতে অবস্থিত আমেরিকান কর্ণার খুলনার এনভায়রনমেন্ট ক্লাব এর উদ্যোগে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *