সর্বশেষ
Home / ছবি ঘর / মামলার ভয়ে কি আর দেশে আসবেন না খালেদা জিয়া প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের

মামলার ভয়ে কি আর দেশে আসবেন না খালেদা জিয়া প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের

1500311124_p-20 রিপোর্টার : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, একজন (তারেক রহমান) মামলার ভয়ে বিদেশ থেকে দেশে ফেরেন না। আরেকজন (খালেদা জিয়া) টেমস নদীর পাড়েই গেলেন। ওনার যাওয়া নিয়ে আমাদের কোনও আপত্তি নেই, আপত্তি থাকার কথাও না। কিন্তু গত শনিবার থেকে ফেসবুক ও টুইটারে যেসব মন্তব্য দেখছি, তাতে প্রশ্ন জাগাটা স্বাভাবিক, তিনি কি মামলার ভয়ে পালিয়ে গেলেন? তিনি কি মামলার ভয়ে আর দেশে আসবেন না? আদালতে তার মামলা পরিচালনার সময়ে ১৫০ বার সময় চেয়েছেন। তাতে এসব গুঞ্জন শাখা-প্রশাখা বিস্তার করেছে।
গতকাল সোমবার সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এর আগে আগামী ২২ অক্টোবর জাতীয় সড়ক নিরাপদ দিবস নির্ধারিত হওয়ায় নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর প্রবক্তা ও অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চনের নেতৃত্বে ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ সংগঠনের নেতাদের মতবিনিময় করেন তিনি। ওই অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কাদের।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘১/১১ এর সময় শেখ হাসিনার মতো সাহস করে তিনি দেশে ফিরে আসবেন কিনা, তার ফিরে আসার সময় দীর্ঘ হবে কিনা- তা সময় বলে দেবে।
সেনা সমর্থিত তত্ত¡াবধায়ক সরকার এবং আওয়ামী লীগ সরকারের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা ছাড়াও খালেদা জিয়া দুর্নীতি ও আন্দোলনে নাশকতার একাধিক মামলার আসামি। এর মধ্যে ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় শুনানি শেষ পর্যায়ে। এই দুই মামলায় শতাধিক বার উচ্চ আদালতে আবেদন করেছেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, মামলায় ১৫০ বার আদালতে সময় চাওয়ার পর এই সন্দেহটা ঘনীভূত হচ্ছে। জনগণ এ গুঞ্জনটার শাখা-প্রশাখা করে ফেলেছে। আমরা দেখব শেখ হাসিনার মত ওয়ান-ইলেভেনের মত সাহস করে তিনি ফিরে আসবেন কি না। মামলার ভয়ে সময় আবার বর্ধিত হবে কি না। ডেট আবারো মামলার তারিখের মত পেছাবে কি না।
তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশন আগামী জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে রোডম্যাপ দিয়েছে, সেই রোডম্যাপের বাস্তবায়ন দেখে আমরা এ সম্পর্কে মন্তব্য করবো। এটি আমাদের দলের অবস্থান। এ রোডম্যাপ নিয়ে নির্বাচন কমিশন পথ চলুক। রোডম্যাপ ভালো হয়েছে কিনা- এ সম্পর্কে মন্তব্য করতে আমরা আরও কিছুটা সময় নেবো। রোডম্যাপের বাস্তবায়নের অগ্রগতি দেখে আমরা কথা বলব। তারা যা বলেছেন তা রোডম্যাপ। আমরা একটু বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াটা দেখতে চাই।
এ সময় সড়কমন্ত্রী বলেন, আমি গাড়ির চালকও নই, গাড়ির মালিকও নই। তারপরও রাস্তায় যখন দুর্ঘটনা ঘটে, প্রাণহানী হয়; সেই দায় মন্ত্রী হিসেবে আমি এড়াতে পারি না। আমরা ঢাকা-আরিচা রোডে দুর্ঘটনা অনেকটা কমিয়ে এনেছি। কিছু কিছু জায়গায় রাস্তা প্রশস্ত করেছি মাত্র ২৫ কোটি টাকা ব্যয় করে। ঢাকা-মাওয়া রোডে ৩৪ কিলোমিটার রাস্তায় ৪২টি স্পিড ব্রেকার ছিল, সেগুলো দিনে তুলতে পারিনি। রাতে তুলতে গেলেও স্থানীয় মহিলাদের হামলার শিকার হয়েছেন আমাদের কর্মকর্তারা। তিনি আরও বলেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে যে দুর্ঘটনা ঘটেছে, সেই গাড়ি ও চালক শাস্তি পাবে। কিন্তু দু’জন মানুষের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে দু’হাজার মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়ার যে সস্তা আবেগ, তা আমাদের পরিহার করতে হবে। কারণ এতে লাখ লাখ মানুষ ও হাজার হাজার গাড়ি আটকে পড়ে। এগুলোর বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

ভোটারহীন নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচন ব্যবস্থার কবর রচিত হয়েছে: পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী অন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলেন, ভোটার ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *