সর্বশেষ
Home / বিশেষ সংবাদ / ফেসবুকে পরিচয়ে বাংলাদেশিকে বিয়ে আট মাস সংসারের পর চলে গেলেন মার্কিন নারী

ফেসবুকে পরিচয়ে বাংলাদেশিকে বিয়ে আট মাস সংসারের পর চলে গেলেন মার্কিন নারী

-1_57848_1505313456ফেসবুকে বাংলাদেশি যুবকের সঙ্গে বন্ধুত্বের সূত্র ধরে যুক্তরাষ্ট্রে স্বামী-সন্তান রেখে আট মাস আগে মার্কিন নারী মেনডি কুসার (৩৯) চলে আসেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায়।

ফারহান আরমান (৩০) নামে বাংলাদেশি যুবকের ভালোবাসার টানে বাংলাদেশে এসে তিনি ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক তাকে বিয়ে করেন।

প্রায় ৮ মাস সংসার করলেও সম্প্রতি তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। এতে স্বামীর প্রতি তার কোনো অভিযোগ না থাকলেও নিজ দেশে চলে যান তিনি।

মঙ্গলবার রাতে এসএমএসের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের হাইকমিশনারের কাছে সহযোগিতা চান মেনডি কুসার।

পরে যুক্তরাষ্ট্রের হাইকমিশনার জেলা পুলিশকে বিষয়টি অবগত করলে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ মাসদাইর এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের কাছে হস্তান্তর করে।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি কামালউদ্দিন বুধবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্রের ১০৮, উইলিয়াম স্টেটের বাসিন্দা স্টেনলে কুসারের মেয়ে মেনডি কুসারের সঙ্গে ৩ বছর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার মাসদাইর এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে ফারহান আরমানের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

পরে ভালোবাসার টানে মেনডি কুসার যুক্তরাষ্ট্রে তার আগের সংসারের দুই সন্তান রেখে ৮ মাস আগে ফতুল্লার মাসদাইর এলাকায় চলে আসেন।

পরে তারা ইসলামি শরিয়ত মোতাবেক বিয়ে করে মাসদাইর পতেঙ্গার মোড় ভাড়া বাসায় বসবাস করতে থাকেন।

ফারহান আরমান ফতুল্লার মাসদাইর পতেঙ্গার মোড় এলাকার জলিল উদ্দিনের ছেলে। তারা প্রায় ৮ মাস সংসার করে হঠাৎ করে অভাব-অনটনের কারণে তাদের পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হয়।

তবে ফারহান আরমানকে ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে যেতে ইচ্ছা পোষণ করলেও তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।

মেনডি কুসারকে মঙ্গলবার রাতেই যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

IMG_2051

কেসিসি মেয়র এর সাথে এনইউবিটি খুলনার শব্দ দূষন ও প্রতিকার বিষয় সেমিনার

নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি খুলনাতে অবস্থিত আমেরিকান কর্ণার খুলনার এনভায়রনমেন্ট ক্লাব এর উদ্যোগে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *