সর্বশেষ
Home / বিশেষ সংবাদ / প্রচারণার পেরেক ঠুকে প্রতিনিয়ত গাছের সর্বনাশ: চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের রাজনীতি এখন গাছে গাছে!

প্রচারণার পেরেক ঠুকে প্রতিনিয়ত গাছের সর্বনাশ: চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের রাজনীতি এখন গাছে গাছে!

সাইদুল ইসলাম: চুয়াডাঙ্গা-২ আসন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যাপক সরগরম হয়ে উঠেছে। আওয়ামীলীগ, বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈাতিক দলের নেতারা দলের নিজস্ব প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে আশার জন্য বুক বেধে রয়েছে। তবে ব্যতিক্রম দেখা গেছে, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে পেরেক ঠুকে প্রচার বোর্ড ঝুলাতে ব্যস্ত মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। এলাকার ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই সড়ক-মহাসড়কের দুই ধারে গাছগুলোকে হাতিয়ার বানানো হচ্ছে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা প্রচার বোর্ডগুলো রাস্তার দু’ধারের প্রতিটি গাছের বুকে পেরেক মেরে ঝুলিয়ে রাখছেন। সরকারি দল ছাড়া অন্যান্য দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদেরাও গাছে প্রাচারবোর্ড ঝুলিয়ে রেখেছেন।

এসব রাজনৈতিক নেতারা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিশেষ বিশেষ দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রচারবোর্ড গাছে ঝুলিয়েছেন। বেশির ভাগ নেতা প্রচারবোর্ডে নিজেদের ছবি সম্বলিত দলীয় প্রতীকসহ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরছেন।
চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা দুই উপজেলার প্রায় হাজার গাছের বুক পেরেক ঠুকে বোর্ড ঝুলিয়েছেন। প্রকৃতির বন্ধু গাছকে লোহার পেরেক ঠুকে ক্ষতবিক্ষত করছেন।

তুলনামূলক গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলোতে একটি গাছে ৮ থেকে ১০টি পর্যন্ত প্রচার বোর্ড টানানো হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের অন্তভুক্ত বিভিন্ন গ্রামগঞ্জ ঘুরে দেখা গেছে, সব গ্রামেই রাস্তার পাশে থাকা গাছে পেরেক দিয়ে সাইনবোর্ড টাঙানো হয়েছে। সাইনবোর্ডের পরিমাণ বেশি দেখা গেছে প্রধান সড়কগুলোর পাশের গাছগুলোতে।
চুয়াডাঙ্গা থেকে জীবননগর পর্যন্ত চোখে পড়ার মতো সব গাছেই আছে পেরেকবিদ্ধ সাইনবোর্ড। অন্য সড়কগুলোতেও গাছে গাছে সাইনবোর্ড ঝুলতে দেখা গেছে। দামুড়হুদা বাসস্ট্যান্ডে একটি গাছে পেরেকবিদ্ধ ২৩ টি সাইনবোর্ড দেখা গেছে।

বিভিন্ন এলাকার লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এ অবস্থা তৈরি হয়েছে পাঁচ-ছয় বছর আগে থেকে। এর আগে হাতে গোনা দু-একটি ছাড়া খুব বেশি সাইনবোর্ড চোখে পড়ত না। দুই বছর আগে থেকে গাছে সাইনবোর্ড বেশি চোখে পড়ছে। এর মধ্যে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনীতিবিদদের সাইনবোর্ডের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেছে। নববর্ষ, বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস ও একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষেও রাজনীতিবিদদের শুভেচ্ছা সাইনবোর্ড দেখা গেছে।

অন্যান্য দিবস উপলক্ষেও নতুন নতুন সাইনবোর্ড গাছে ঝুলিয়ে থাকেন রাজনীতিবিদরা। জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য দলীয় মনোনয়ন লাভের আশায় অনেকে তাঁদের ছবিসংবলিত সাইনবোর্ড ও প্ল্যাকার্ড গাছে গাছে আটকে দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে একজন বৃক্ষ প্রেমিক বলেন, গাছ আমাদের অক্সিজেন দেয়, পরিবেশ ঠিক রাখাসহ জীবনে অনেক উপকারে লাগে। তাই গাছে এভাবে লোহার পেরেক ঠুকে কিছু না ঝুলানোই উচিৎ।এ ব্যাপারে পরিবেশবাদী সাংবাদিক নুরুল আলম বলেন, গাছ যদি কথা বলতে পারতো তা হলে বলতো- পেরেকের ঠোকরে আর কত ক্ষতবিক্ষত করবে তোমরা আমার বুক!

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

ঝিনাইদহে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ২জন নিহত আহত একজন

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ ঝিনাইদহে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় দুই জনের মৃত্যু ঘটেছে। আহত হয়েছে একজন। সোমবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *