সর্বশেষ
Home / খেলাধুলা / ঝিনাইদহে জাতীয় বয়সভিত্তিক ক্রিকেট অনূর্ধ্ব-১৪, ১৬ ১৮ বাছাই পর্ব সম্পন্ন

ঝিনাইদহে জাতীয় বয়সভিত্তিক ক্রিকেট অনূর্ধ্ব-১৪, ১৬ ১৮ বাছাই পর্ব সম্পন্ন

এলিস হক, ঝিনাইদহ হতে : উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে দিনব্যাপী ঝিনাইদহে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে সম্পন্ন হলো জাতীয় বয়সভিত্তিক ক্রিকেট প্রতিযোগিতা অনূর্ধ্ব-১৪,১৬ ও ১৮ খেলোয়াড়দের বাছাই পর্ব।

রবিবার সকাল ৯টায় দুর-দুরন্ত হতে মাঠে আসেন ৫শতাধিক ক্রিকেট খেলোয়াড়। ঝিনাইদহ শহর ও শহরের পার্শ্ববর্তী এলাকা হতে অনেক সম্ভাবনাময় ও প্রতিভাবান ক্ষুদে খেলোয়াড়রা ছুটে আসেন বয়সভিত্তিক ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য। মূল শহরের আশেপাশে বিশেষ করে বাংলাদেশ ক্রিকেট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিসিএসপি), রাহুল স্মৃতি ক্রিকেট একাডেমী, মিনা স্মৃতি ক্রিকেট গ্রুপ, রাইজিং টাইগার ক্রিকেট ইন্সটিটিউট, রাইজিং টাইগার এবং শহরের বাইরে হতে আগত কোটচাঁদপুরের সাকসেস ক্রিকেট একাডেমী, এন.জে. ক্রিকেট একাডেমী, কালীগঞ্জের লায়ন্স ক্রিকেট একাডেমী এবং ঢাকাস্থ শেখ জামাল ক্রিকেট একাডেমী, খুলনাস্থ আবাহনী ক্রিকেট একাডেমীর নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের খেলোয়াড়েরা হাজির হন ঝিনাইদহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার আহ্বানে। সেই আহ্বানে সাড়া দেন তারা।

মূল অনুষ্ঠান শুরু হয় সকাল ১০টায়। দুই কোচের তত্ত্বাবধানে বাছাইপর্বের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন ঝিনাইদহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জীবন কুমার বিশ্বাস। এই সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ ডিএসএর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক-জেলা ক্রিকেট পরিষদের সভাপতি মোঃ রাশেদুর রহমান, ডিএসএর নির্বাহী সদস্য মোঃ জয়নাল আবেদীন, নির্বাহী সদস্য ফরহাদুর রেজা মুন্না, সাবেক ক্রিকেট খেলোয়াড় মোঃ জেয়াউল ইসলাম, সাবেক ক্রিকেট খেলোয়াড় আইজাজুল হক রবিন, ক্রিকেট কোচ শাহেদ আল নূর লিবন, ক্রিকেট কোচ মোঃ নূরুজ্জামান, অফিস সহকারী শহিদুর রহমান শহীদসহ আরো অনেকে। সঞ্চালকের ভূমিকায় ছিলেন লিবন।

বিভিন্ন বক্তারা উপস্থিত ক্ষুদে খেলোয়াড়ের উদ্দেশ্যে বলেন-আমাদের এই জেলায় প্রচুর প্রতিভাবান ক্রিকেট খেলোয়াড় রয়েছে। তাদের নিয়ে আমরা অনূর্ধ্ব-১৪, ১৬ ও ১৮ বয়সী খেলোয়াড়দের জন্য দলগঠন করবো এবং চ্যাম্পিয়নশীপ ফাইট দেয়ার লক্ষ্যে আমরা ব্যাপক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। এই লক্ষ্যে ঝিনাইদহ জেলা ক্রীড়া সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের দ্বারা প্রণীত ক্রিকেট খেলার যাবতীয় আইন-কাঠামোর ভেতর দিয়ে আমাদের ঝিনাইদহ জেলার খেলোয়াড়রা যাতে সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে খেলায় অংশ নিতে পারে, তার জন্য স্থানীয় কোচেদের মাধ্যমে ক্রিকেট অনুশীলনে ও দলগঠনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বয়সভিত্তিক ক্রিকেট বাছাই যাচাই করে দেখেন স্থানীয় ক্রিকেট কোচদ্বয়। পরে বিভিন্ন বয়সী খেলোয়াড়ের জন্ম সনদপত্র দেখে দেখে বাছাই প্রক্রিয়া করা হয়। উদ্দেশ্য-খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ে জেলা টু জেলা ক্রিকেট প্রতিযোগিতা হবে এবং ভালো দল ও ভালো খেলোয়াড়দের নিয়ে আরেক স্তরে নিয়ে যাওয়া হবে খুলনা বিভাগীয় বা মেট্রোপলিটন ক্রিকেট দলে অন্তর্ভূক্ত করা।

এর পরেই খুলনাসহ অপরাপর ৮টি বিভাগীয় দলকে নিয়ে জাতীয় স্তরের খেলা হবে। এখানে যাদের পারফরমেন্স করবে তাদের জন্য রয়েছে অবারিত সুযোগ এবং দীর্ঘমেয়াদী ক্রিকেট ক্যাম্পের সূত্রে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট অনূর্ধ্ব-১৪,১৬ ও ১৮ মূল দলে খেলার…আর সেই স্বপ্ন নিয়ে ঝিনাইদহে হাজিরা দিয়ে ধরা দেন অসংখ্য ক্ষুদে খেলোয়াড় সুব্রত, রাফি, রহিম, শাহিন, হৃতিকের মতো আরো অনেকে। তাদের চোখে মুখে অভিপ্রায় বলে দ্যায়-তার স্ব স্ব বিভাগে ক্রিকেট খেলতে প্রস্তুত।

ঝিনাইদহ স্টেডিয়ামে ইতিপূর্বে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী-জুনে অনুষ্ঠিত প্রথম বিভাগ ও দ্বিতীয় বিভাগ ক্রিকেট লীগ খেলেছেন। আর সেই সব অংশগ্রহণকারী অধিকাংশ ক্রিকেট খেলোয়াড়েরা এখানেও জড়িয়ে আছেন বয়সভিত্তিক ক্রিকেট বাছাইপর্বে। তবে বয়স লুকোচুরির কোনো সুযোগ নেই-সেটা স্পষ্ট পরিস্কার জানিয়ে দিয়েছেন দুই ক্রিকেট কোচরা।

সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত একটি সূত্র বলেছে-ব্যাটসম্যান ও বোলারদের নিয়ে আলাদা আলাদাভাবে নেট অনুশীলন দেখে খেলোয়াড়দের পারফরমেন্স যাচাই করা হবে এবং প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত খেলোয়াড়দের নিয়ে পরবর্তীতে মেডিকেল বোর্ড দ্বারা আবারো চূড়ান্তভাবে ঠিক করা হবে তিনটি দলের মধ্যে কত জন খেলোয়াড় থাকবে। সবশেষে দলগঠনের পরবর্তী খেলার প্রস্তুতি গ্রহণ যথাসময়ে নোটিশের মাধ্যমে সবাইকে জানিয়ে দেয়া হবে বলে সূত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে মহেশপুর উপজেলার কৃতি ক্রিকেট খেলোয়াড় ও ঢাকা ক্রিকেট লীগে খেলে যাওয়া তাসনিম হাসান বলেন, এখান হতে অনেক সম্ভাবনা ক্রিকেট প্রতিভাবান খেলোয়াড় সুপ্ত অবস্থায় রয়েছে। যাদেরকে নিয়ে এই ঝিনাইদহ জেলার তিনটি দলের বয়সীরা অনেক অনেক দক্ষতার পরিচয় দিতে পারবে, এমন সম্ভাবনাময় খেলোয়াড়দের নিয়ে প্রথমে খুলনা স্টেডিয়ামে খেলায় অংশ নেবে।

এমন জেলার মধ্যে কতকগুলো ভালো খেলোয়াড়ের পারফরমেন্সের বদৌলতে তারা যদি চ্যাম্পিয়নশীপে উৎরে যেতে পারে, তবে তাদেরকে নিয়ে আরেকটি স্তরে প্রবেশ করানো হবে খুলনা বিভাগীয় দলের খেলার জন্য প্রতিনিধিত্ব করবে। আবার এখান হতে কোনো কোনো ক্রিকেট খেলোয়াড়ের যেকোনো ৩ দলের মধ্যে ভালো কিছু পারফরমেন্স প্রদর্শন করতে পারে…তাদের নিয়েও কিন্তু ৮টি বিভাগীয় স্তরে চ্যাম্পিয়নশীপে যোগ্যতা দেখাতে পারে..তাহলে আর কোনো কথাই নেই। ৮টি বিভাগীয় দলের মধ্যে দক্ষতাপূর্ণ যেকোনো খেলোয়াড়রাও বয়সভিত্তিক বাংলাদেশ জাতীয় দলে খেলার সুযোগ পেয়ে যেতে পারে।

এক প্রশ্নের জবাবে আমি ব্যক্তিগত মনে করি, আমার চেয়েও ঝিনাইদহ দলে অনেক ভালো ক্রিকেট খেলোয়াড় রয়েছে। যারা জাতীয় স্তুরের ক্রিকেটে সাফল্যের জন্য মুখিয়ে আছে। যার প্রমাণ-সম্প্রতি বাংলাদেশ জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন পেসবোলার ঝিনাইদহের আল আমিন। এই আল আমিন বয়সভিত্তিক ক্রিকেটের প্রতিনিধিত্ব করেছেন ঝিনাইদহ জেলা দলের হয়ে।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

ঝিনাইদহে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ২জন নিহত আহত একজন

ঝিনাইদহ সংবাদদাতাঃ ঝিনাইদহে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় দুই জনের মৃত্যু ঘটেছে। আহত হয়েছে একজন। সোমবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *