সর্বশেষ
Home / অপরাধ-দুর্নীতি / ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে সাংবাদিক পরিচয়দানকারী নারীসহ দুইজন আটক

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে সাংবাদিক পরিচয়দানকারী নারীসহ দুইজন আটক

ঝিনাইদহসংবাদদাতাঃ  ভারতের কলকাতা ও আকাশ টেলিভিশনের পরিচয় দানকারী দুই সাংবাদিককে জনতা আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে। এরা হলো ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার গোলকনগর গ্রামের জিয়ারত ডাক্তারের ছেলে লিটন মিয়া ও রাজবাড়ি জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার নড়িয়া গ্রামের ইসলাম মোল্লার মেয়ে আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী। বুধবার দুপুরে জেলার হরিণাকুন্ডু উপজেলার দুর্লভপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। সংশ্লিষ্ট থানার ওসি আসাদুজ্জামান মুন্সি এখবর নিশ্চিত করেছেন ।

তিনি জানান, লিটন মিয়া ও আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে উপজেলার স্লিপ প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলে উপজেলার দুর্লভপুর সরকারী প্রাইমারী বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে পাচ হাজার টাকা দাবী করে । এ পর্যায়ে ১৫’শ টাকা হাতিয়ে নেয় তারা । গত ২৬ জুলাই এ ঘটনা ঘটে । বুধবার ফের বিদ্যালয়টিতে আসে এবং শোক দিবসে খানাপিনা নেই কেন এমন অজুহাত তুলে শিক্ষকদের কাছে চাঁদা দাবী করে তারা । তাদের আচার আচরনে শিক্ষকদের সন্দেহ হয় ।

নিরুপায় হয়ে পুলিশকে খবর দেন তারা । খবর পেয়ে সেখানে যাওয়ার পরে শিক্ষকসহ স্থানীয়রা সাংবাদিক পরিচয়দানকারী ওই দুইজনকে পুলিশে সোর্পদ করেন বলে জানান ওসি । আটক করা লিটনের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া সদর থানায় ধর্ষনের অভিযোগে মামলা রয়েছে বলেও জানায় পুলিশের এ কর্মকর্তা । তাদের কাছ থেকে ভারতের কলকাতা ও আকাশ টেলিভিশনের পরিচয় পরিচয় পত্র ও লগো উদ্ধার করা হয়েছে ।

আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী পুলিশেকে জানিয়েছে, তার স্বামীর বাড়ি চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গার বড় বোয়ালিয়া গ্রামে। স্বামীর সাথে তার ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে। এ কারণে শৈলকুপার গোলকনগর গ্রামের লিটন মিয়ার সাথে ভাটই বাজারে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে বসবাস করেন তারা ।

এ বিষয়ে দুর্লভপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক জানিয়েছেন, আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারি তারা সাংবাদিক নয়, তারা মুলত কলকাতা ও আকাশ টিভির পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজী করতে এসেছিল। তাই তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছি। এ ব্যাপারে থানায় ভুয়া সাংবাদিক লিটন ও হ্যাপীর নামে মামলা দায়ের করেছেন তিনি । বিকেলে এ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে ।

প্রসঙ্গত ঃ গেলো কয়েকদিন আগে একই উপজেলার চরপাড়া বাজারে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজী করার সময় জেলার কোটচাঁদপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা তাজুল ইসলামের ছেলে জিয়াউল হক, হরিণাকুন্ডুর হরিয়ারঘাট গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে শাওন হাসান আবীর ও কুষ্টিয়ার ইবি থানার বিষ্ণুদিয়া গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে ওয়ালীউল্লাহ গ্রেফতার করে পুলিশ । স্থানীয় ভয়না বাজারে এক মুড়ি বিক্রেতাকে সংবাদ প্রকাশের ভয় দেখিয়ে চার হাজার টাকা চাঁদা নেয়ার সময় জনতারা হাতে ধরা পড়ে যায় তারা । পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে ।

এদিকে জেলা শহরসহ বিভিন্ন উপজেলার আনাচে কানাচে নারী ও পুরুষ সাংবাদিক পরিচয়দানকারীর সংখ্যা হঠাৎ করে বেড়ে গেছে । আজব আজব টেলিভিশনের লগো ও সংবাদ পত্রের পরিচয় পত্র বহণ করছে তারা । সরকারী বেসরকারী অফিস, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দাপিয়ে বেড়াচ্ছে তারা । এদের ভয়ে আড়ষ্ট হয়ে পড়েছেন জনপদের সাধারণ মানুষ । এমন তথ্য দিয়েছেন একাধিক সরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

মাদকাসক্তরা বেপরোয়া নির্যাতনের শিকার পরিবারকে হুমকি-ধামকী দিচ্ছে: অবশেষে থানায় লিখিত অভিযোগ!

আতিকুজ্জামান:  জীবননগর লক্ষীপুরপ মাদকাসক্তরা বেপরোয়া নির্যাতনের শিকার পরিবারকে হুমকি। মাদকসেবনকারিদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় প্রতিবাদিকে মাদকাসক্তরা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *