সর্বশেষ
Home / উপজেলার খবর / ঝিনাইদহের প্রতিবন্ধি সালমা জীবন যুদ্ধে হারতে চান না

ঝিনাইদহের প্রতিবন্ধি সালমা জীবন যুদ্ধে হারতে চান না

Salma-Pic-JND(1)ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ প্রথমে দেখলে মনে হবে হাসিমাখা একটি প্রানবন্ত মুখ। কিন্তু না। ২০১২ সালে হঠাৎ মুখ ব্যাকে যায় সালমার। সেই সাথে শরীরের বাম পাশ প্যারালাইসড হয়ে অসাড় হয়ে পড়ে। সালমার মুখ দিয়ে অনবরত লালা পড়তে থাকে। এখনো তিনি মুখ বুজে থাকতে পারেন না। সব সময় হা করে থাকতে হয় তাকে। জটিল রোগ ও নিজে শরীরিক প্রতিবন্ধি হওয়া সত্বেও ২৬ বছরের সালমা খাতুন পড়ালেখা চালিয়ে যেতে চান। কিন্তু তার এই প্রবল ইচ্ছায় বাধ সেধেছে আর্থিক সংকট।

অসহায় পরিবারটির সাথে যোগাযোগ ০১৯৪৩-১৯৮০২১ (বোন আসমা)

ছয় মাস ঘুরেও যখন প্রতিবন্ধির কার্ড পায়নি তখন হতাশা ব্যক্ত করে নিজের জীবনের প্রতি বিতশ্রদ্ধা আর ঘৃনা জন্মেছে এই তরুনীর। সালমা খাতুন ঝিনাইদহ শহরের নতুন হাটখোলাপাড়ার আনোয়ার হোসেন ওরফে পান্না মোলøার মেয়ে। তিনি ঝিনাইদহ সরকারী কেসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের দর্শন (অনার্স) বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। কিন্তু শারীরিক অসুস্থতার কারণে পড়ালেখায় ছেদ পড়েছে। সালমার পরিবারের অভিযোগ, শরীরে জটিল রোগ ও প্রতিবন্ধি হয়েও এ পর্যন্ত সরকারী কোন আর্থিক সুবিধা পান নি। নিজের খালাতো ভাই মাসে মাসে সালমার চিকিৎসায় ব্যায় করেছেন ৫ লাখ টাকা।

এখন তিনি অপারগতা প্রকাশ করছেন। আর কত করবেন ? প্রতিমাসে সালমার চিকিৎসা ব্যায় প্রায় ৫/৬ হাজার টাকা। চিকিৎসা খরচ মেটাতে নিরুপায় হয়ে প্রতিবন্ধি সালমা ঝিনাইদহ শহর সমাজসেবা অফিসে যোগাযোগ করেছেন। কিন্তু তাতেও ফল হয়নি। এখন শিÿা ভাতার দিকে চেয়ে আছেন সালমা। সালমার মা আম্বিয়া খাতুন জানান, ২০০৮ সালে এসএসসি পরীÿায় পাস করার পর বেশ ভালই কাটছিলো সালমার জীবন। ২০১০ সালে এইচএসসি পরীÿা দিয়ে ভর্তি হন সরকারী কেসি কলেজে। বিধিবাম তারপরই সালমার জীবনের মোড় ঘুরে যায়।

আত্মীয়দের সহায়তায় ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ডাক্তার দেখানোর পর তারা সালমার জীবন নিয়ে শংকা প্রকাশ করেন। চিকিৎসকদের আশংকা ব্যার্থ করে দিয়ে এখনো সালমা বেঁেচ আছেন, তবে প্রতিবন্ধি হয়ে। উন্নত চিকিৎসা করা গেলে টকবগে এই তরুনী সুস্থতার পাশাপাশি আবার পড়ার টেবিলে ফিরতে পারতো। বোন আসমা খাতুন জানান, আত্মীয় স্বজনরা আর কত সহায়তা করবেন। ৬ বছর ধরে তারা চিকিৎসা ব্যায় চালিয়ে যাচ্ছেন। নিজেদের যা কিছু ছিলো সবই ব্যায় হয়েছে সালমার চিকিৎসা ও পড়ালেখায়। এখন সবাই বিব্রত। সালমাকে বাঁচাতে তিনি দানশীল ও সমাজের বিত্তবানদের কাছে আর্থিক সয়াতা কামনা করেন।

অসহায় পরিবারটির সাথে যোগাযোগ ০১৯৪৩-১৯৮০২১ (বোন আসমা)

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

আমার সংবর্ধনার প্রয়োজন নেই, আমি জনগণের সেবক: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০০১ সালে গ্যাস বিক্রির মুচলেকা দিয়ে বিএনপি ক্ষমতায় এসেছিল। আমি মুচলেকা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *