সর্বশেষ
Home / রাজনীতি / চুয়াডাঙ্গা-২ নির্বাচনী এলাকায় শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা জনগনের কাছে পৌছে দিলেন হাশেম রেজা

চুয়াডাঙ্গা-২ নির্বাচনী এলাকায় শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা জনগনের কাছে পৌছে দিলেন হাশেম রেজা

আজাদ হোসেন,চুয়াডাঙ্গা :  প্রায় পক্ষকালব্যাপী চুয়াডাঙ্গা-২ নির্বাচনী এলাকায় অবস্থান শেষে শেখ হাসিনার উন্নয়নের বার্তা জনগনের কাছে পৌছে দিয়ে শনিবার বিকালে ঢাকায় ফিরলেন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের এমপি মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রিীয় সহ-সম্পাদক জননেতা হাশেম রেজা।

এসময় তিনি বর্তমান সরকারের বিগত ১০ বছরে সরকারের পাশাপাশি দেশ পরিচালনায় শেখ হাসিনার যে সাফল্য সে গুলি সবিস্তারে চুয়াডাঙ্গা বাসীর সামনে তুলে ধরেন। জননেতা হাশেম রেজা আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিগত ১০ বছর যাবত চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের বর্তমান সাংসদের বিভিন্ন অনিয়ম-দূর্নীতি আর স্বেচ্ছাচারিতা এবং অবহেলা, শোষন-বঞ্চনার কারনে এ আসনে যে অসংখ্য পরিমানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ,যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী সহ এলাকার উন্নয়ন বঞ্চিত সাধারন মানুষ দলের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন সেই সব নেতা ও কর্মীদেরকে আবারোর উজ্জীবিত করে দলীয় রাজনীতিতে সক্রিয় করতে এবং আগামী নির্বাচনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে নৌকার বিজয়ে সামিল করার লক্ষ্যে কঠিন চ্যালেঞ্জ নিয়ে গত ১৪ সেপ্টেম্বর ঢাকা থেকে সড়ক পথে নিজ নির্বাচনী এলাকাতে ফেরেন।

ফেরার পথে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের প্রবেশদ্বার জীবননগরের হাসাদহে ২ হাজার মোটর সাইকেল-মাইক্রোবাসের বহর নিয়ে হাজার নেতা-কর্মী তাদের প্রিয় নেতা হাশেম রেজাকে স্মরন কালের সর্ববৃহৎ গন-সংবর্ধনা প্রদান করেন। এর পর থেকে তিনি চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের দামুড়হুদা ও জীবননগরে নিকট অতীত রাজনীতির ইতিহাসে বঙ্গবন্ধু কন্যা গনমানুষের ঠিকানা দেশরতœ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে নৌকার ধারাবাহিক কর্মী-সমাবেশের অংশ হিসাবে ৪টি বৃহৎ নৌকার কর্মী-সমাবেশ সহ এখানকার প্রতিটি ইউনিয়নের ১০ টির অধীক পরিমানে অনুরুপ কর্মী-সমাবেশ ও দিন-রাত ব্যাপক গন-সংযোগ করেন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রিয় সহ-সম্পাদক আগামী দিনের উন্নয়নের রুপকার, সময়ের সাহষী সন্তান গন-মানুষের নেতাএবং প্রতিশ্রুতিশীল রাজনীতিক হাশেম রেজা। তিনি ফেরার পরদিন ১৫ সেপ্টেম্বর কুড়–লগাছী দলীয় অফিসে এলাকার দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে কর্মী সভা করেন।

১৬ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদার উজিরপুরে কর্মী সমাবেশ, ১৭ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গায় বিশাল জনসভা, ১৮ সেপ্টেম্বর চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার হিজলগাড়ী বাজারে কর্মী সমাবেশ, ১৯ সেপ্টেম্বর জীবননগর উপজেলাব্যাপী গন-সংযোগ,২০ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদা উপজেলার কুতুবপুরে কর্মী সমাবেশ,২১ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদা উপজেলাব্যাপী গন-সংযোগ, ২২ সেপ্টেম্বর জীবননগর উপজেলার হাসাদহে স্মরনকালের সর্ববৃহৎ জনসভা, ২৪ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদা উপজেলার চিৎলায় কর্মী সমাবেশ বিশাল জনসভায় পরিনত, ২৫ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদা উপজেলার কুড়–লগাছী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-অভিভাবক সমাবেশ, ২৬ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদা উপজেলার ঐতিহাসিক লোকনাথপুর হেলিপ্যাড মাঠে প্রবল বর্ষনের উপেক্ষা করে র হাজার মানুষের জনসভা, ২৭ সেপ্টেম্বর দামুড়হুদা উপজেলার কালিয়া বকরী ও হুদাপাড়া গ্রামে পৃথক দু’টি বৃহৎ কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এ ছাড়া ২৮ সেপ্টেম্বর কুড়–লগাছী দলীয় অফিস চত্তরে নেতা-কর্মীদেরকে সাথে নিয়ে বিশ্বজয়ী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ কন্যা, হিমাদ্রী শিখর সফলতার মূর্ত-স্মারক, বাংলাদেশের উন্নয়নের কান্ডারি রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার ৭২তম জন্মদিন যথাযথ মর্যাদার সাথে পালনের লক্ষ্যে বর্নাঢ্য র‌্যালী, কেক কাটা, আলোচনা সভা ও জননেত্রী শেখ হানিার দীর্ঘ জীবন কামনায় দোয়া মাহফিলের অনুষ্ঠান আয়োজন করেন জননেতা হাশেম রেজা।

চুয়াডাঙ্গা-২ নির্বাচনী এলাকার দামুড়হুদা ও জীবননগর উপজেলা এবং তিতুদহ ও বেগমপুর ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রাম ও জনপদে জননেত্রী শেখ হাসিনার বার্তা বাহক হিসাবে মানুষের দ্বারে দ্বারে গেছেন এ আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী উদীয়মান তরুন নেতা জনপ্রিয় জাতীয় দৈনিক আমার সংবাদ’র সম্পাদক,প্রকাশক জননেতা হাশেম রেজা। তিনি এই দীর্ঘ সময় এখানে অবস্থানকালীন সময়ে গভীর রাত পর্যন্ত বিরামহীন ভাবে চষে বেড়িয়েছেন গোটা এলাকা। তিনি এ সময়টাতে বর্তমান সরকার কোন কোন ক্ষেত্রে অগ্রগতি অর্জন করেছে আর কোন উদ্যোগ গুলি এখনও বাস্তবায়নাধীন রয়েছে এবং আগামী ২ বছরের মধ্যে সে গুলি যে ভাবে বাস্তবায়ন করা হবে তার রুপরেখা সহ সমস্ত বর্ননা এলাকার গ্রামে গ্রামে যেয়ে সকলের সামনে তুলে ধরেন।

এবারের এলাকা সফরে হাশেম রেজা যেখানে গেছেন সেখানে তাকে দেখার জন্য আর তার কথা শোনার জন্য হাজার হাজার মটরসাইকেল, মাইক্রোবাস, পিকআপ, নসিমন, করিমন, আলমসাধু, ভটভটি, বাইসাইকেল এমনকি পায়ে হেটে মানুষ সেখানে উপস্থিত হয়েছেন, ফলে মুহুর্তের মধ্যে সেই জায়গাটি জনসমুদ্রে পরিনত হয়ে গেছে। গ্রামের আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা মাঠের রাখাল, কৃষক, কৃষান-কৃষানী তাদের কাজ ফেলে ছুটে এসেছে হাশেম রেজা কি বার্তা নিয়ে এসেছে তা শোনার জন্য। গন-মানুষের নেতা হাশেম রেজা আবেগতাড়িত কন্ঠে বলেন ,তার জীবনের সবচেয়ে বড় পাওয়া জীবননগরের হাসদহে, এবং দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা ও লোকনাথপুরের সফল জনসভাগুলি।

যেখানে বিশাল মানুষের উপস্থিতিই প্রমান করে দিয়েছে এই এলাকার সর্বস্তরের মানুষ তাকে কতটা ভালবাসে। এছাড়া অন্যান্য সভা-সমাবেশ কিংবা কর্মী সমাবেশ ও জনসংযোগে প্রচারনা ছাড়াই হাজার হাজার মানুষের সরব উপস্থিতি তাকে আভিভূত করেছে এবং এই সুখানুভূতি তার রাজনীতি ও চলার পথকে স্বার্থক করে তুলেছে বলেও তিনি এ প্রতিবেদকের কাছে তার স্বগর্ব মতামত ব্যক্ত করেন।

তিনি জানান, আমার আর কিছুই চাওয়া বা পাওয়ার নেই কারন এলাকার মানুষের যে ভালবাসা ও সমর্থন আমি পেয়েছি এতেই আমার রাজনৈতিক জীবন সফল ও স্বার্থক। এবং এগুলিই আমারজীবনের সেরা প্রাপ্তি, এর বেশি আমার আর কোন কিছু চাওয়ার নেই।

এসকল উত্তাল জনসমুদ্রের মাঝে তাদের নন্দিত নেতা হাশেম রেজা তার বলিষ্ঠ কন্ঠে তেজোদীপ্ত আবেগে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শানিত বক্তব্যে তিনি বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নের্তৃত্বে বাংলাদেশ সব সেক্টরে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করে চলেছে। তর তর করে এগিয়ে যাচ্ছে ভিশন ২০২১ এর দিকে। একদিকে যেমন দেশের অনেক ইউনিয়ন, উপজেলা এমনকি জেলা পর্যন্ত ভিক্ষুক মুক্ত, দারিদ্র মুক্ত, নিরক্ষর মুক্ত, বাল্য বিয়ে মুক্ত, নারী নির্যাতন মুক্ত ঘোষিত হচ্ছে একের পর এক, ঠিক তেমনিভাবে বাংলাদেশ তার নিজস্ব টাকায় পৃথিবীর দীর্ঘতম পদ্মা সেতু নির্মান করে বিশ্ববাসীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

এ সরকারের আমলে দেশে মাতৃমৃত্যূর হার শূন্যের কোঠায় নেমে এসেছে, এখন আর কোন মায়ের বিনা চিকিৎসায় প্রসবকালীন মৃত্যূ হয়না। এ দেশের কোন অসহায় মানুষ এখন আর পয়সার অভাবে বিনা চিকিৎসায় মারা যায়না, রাস্তা-ঘাটে বা ডাষ্টবিনে ভুখা-নাঙ্গা মানুষ গুলোর ক্ষুধার জালায় খাবার কাড়া-কাড়ির দৃশ্য আর চোখে পড়েনা।

লজ্জা নিবারনে মা-বোনদেরকে এখন আর ছেড়া বা ময়লা বস্ত্র পরিধান করতে হয়না। গ্রাম-বাংলা কিংবা শহরে কোথাও রাত নেমে আসলেই কেরোসিন তেলের অভাবে কষ্ট করে জালিয়ে রাখা কুপি বাতি নিভে গেলেও এখন আর ভৌতিক ভয় অথবা চোর ডাকাতের ভয়ে আর মানুষকে পেয়ে বসেনা, কারন এখন সারা বাংলাদেশের অজ-পাড়াগা পর্যন্ত সন্ধ্যা নামার সাথে সাথেই বৈদ্যুতিক বাতিতে ঝলমলিয়ে ওঠে।

সাড়ে ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন সীমা নিয়ে রাষ্টীয় ক্ষমতায় এসে এখন পর্যন্ত ১৮ হাজার মেগাওয়াটের উপরে বিদ্যুৎ উৎপাদন স্থিতিশীল করতে সক্ষম হয়েছে শেখ হাসিনার সরকার, যেটা ইতিমধ্যে বিশ্বে একটি মাইল ফলক হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে।

হাশেম রেজা জানান, দেশের মানুষ শান্তিতে ঘুমাবে, নিশ্চিন্তে চাকুরি, ব্যাবসা-বানিজ্য করবে, ছেলে-মেয়েরা ভাল পরিবেশে লেখাপড়া করবে, মা-বোনেরা পরম মমতায় আপন সংসার সামলাবে, কৃষক সারাদিন ক্ষেতে কাজ শেষে হাসি মুখে বাড়ি ফিরবে, সাদা মনের মানুষে ভরে উঠবে সারা বাংলা এই প্রত্যাশায় আমাদের প্রিয়নেত্রী শেখ হাসিনা দিন-রাত নির্ঘুম পরিশ্রম করে চলেছেন।

শেখ হাসিনা দেশের জন্য ভয়ঙ্কর জঙ্গিবাদ নির্মূলে কঠোর মনোভাবের সাথে দক্ষহাতে তাদের দমনে কাজ করে চলেছেন, এ ক্ষেত্রে নিজ দলের কিংবা অন্য দলের যেই হোক না কেন জঙ্গিবাদের সাথে সম্পৃক্ত কারো কোন ছাড় নেই তার কাছে। দেশ ও জনগনের নিরাপত্তায় তার কাছে শেষ কথা। যিনি নিজের মৃত্যু ভয়কে তুচ্ছ জ্ঞান করে সামনে এগিয়ে চলেছেন দুর্নিবার।

এ রকমের হাজারো বক্তব্যের মাঝে জননেত্রী শেখ হাসিনার বার্তা চুয়াডাঙ্গার মানুষের কাছে সফল ভাবে পৌছে দিয়ে তার এ এলাকার যোগ্য উত্তসূরীর কাজটিই করলেন জেলার দামুড়হুদা ও জীবননগর উপজেলা এবং তিতুদহ ও বেগমপর ইউনিয়নের পশ্চাৎপদ জনপদের ভবিষ্যত কান্ডারী উদীয়মান তরুন জননেতা হাশেম রেজা।তার চলে যাওযা পথের দিকে দৃষ্টিতে তাকিয়ে সেই শুভক্ষনের জন্য অধীর আগ্রহের অপেক্ষার প্রহর গুনে চলেছেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের জনগন যে ক্ষন বা দিনটিতে পরম কাঙ্খিত চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের এমপি মনোনয়নের পরম আরাধ্য নৌকা প্রতীক তাদের প্রিয় নেতা হাশেম রেজার বিশ্বস্থ হাতে শোভা পাবে।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

প্রচারণার পেরেক ঠুকে প্রতিনিয়ত গাছের সর্বনাশ: চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের রাজনীতি এখন গাছে গাছে!

সাইদুল ইসলাম: চুয়াডাঙ্গা-২ আসন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ব্যাপক সরগরম হয়ে উঠেছে। আওয়ামীলীগ, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *