সর্বশেষ
Home / আইন-আদালত / চুয়াডাঙ্গায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

চুয়াডাঙ্গায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

রিফাত রহমান :চুয়াডাঙ্গায় স্ত্রী তহমিনাকে হত্যার দায়ে স্বামী আকাশের মৃত্যুদন্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। সোমবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ জিয়া হায়দার এ আদেশ দেন। দন্ডিত আসামী আকাশকে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট আব্দুল মালেক বলেন, চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার তিওরবিলা গ্রামের রমজান আলীর ছেলে আকাশের সঙ্গে ২০১৫ সালের শেষের দিকে সদর উপজেলার মোহাম্মদজুমা গ্রামের সবদ আলীর মেয়ে তহমিনা খাতুনের বিয়ে হয়।

 

বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী তহমিনাকে মারধোর শুরু করে আকাশ। যৌতুক না পেয়ে ২০১৬ সালের ১৪ জুলাই রাত ১১টার দিকে তহমিনাদের বাড়িতে অবস্থানকালে আকাশ তার স্ত্রী তহমিনাকে জবাই করে হত্যা করে এবং রাতেই ওই বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।

 

 

পরদিন তহমিনার বাবা সবদ আলী চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় গিয়ে তার মেয়ে তহমিনার স্বামী আকাশকে আসামী করে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে যৌতুকের দাবিতে গলা কেটে হত্যা করার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করে। ঘটনার পরদিনই গ্রামবাসী আকাশকে আটক করে থানায় সোপর্দ করে।

 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মাসুদ পারভেজ ২০১৬ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর আসামীর নামে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এ মামলায় মোট ১৩ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য পরীক্ষা করা হয়। সাক্ষ্যপ্রমাণে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আদালতের বিচারক মোঃ জিয়া হায়দার মামলার একমাত্র আসামী আকাশের বিরুদ্ধে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন।

 

বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট আব্দুল মালেক। আসামী পক্ষে ছিলেন এ্যাডভোকেট অহিদুল আলম খন্দকার। আসামির উপস্থিতিতে রায় ঘোষণা করা হয়।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

আন্দুলবাড়ীয়ায় নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান-মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এলাকাবাসীর ভালোবাসা ও ফুলের শুভেচ্ছায় সিক্ত

আন্দুলবাড়ীয়া প্রতিনিধি: সদ্য অনুষ্ঠিত তৃতীয় ধাপে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচনত্তোর জীবননগর উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *