সর্বশেষ
Home / অপরাধ-দুর্নীতি / চুয়াডাঙ্গায় ভ্রাম্যমান আদালতে ভূয়া চক্ষু চিকিৎসকের ছয় মাসের কারাদন্ড

চুয়াডাঙ্গায় ভ্রাম্যমান আদালতে ভূয়া চক্ষু চিকিৎসকের ছয় মাসের কারাদন্ড

Chuadanga Mobile Court Picture 25.07.2017রিফাত রহমান :চুয়াডাঙ্গা শহরের আলী হোসেন সুপার মার্কেটে ভ্রাম্যমান আদালত সোহাগ অপটিকসে এমবিবিএস পরিচয়ে ভুয়া চক্ষু চিকিৎসক এম.ডি. শামসুর রহমানকে ছয় মাসের কারাদন্ড প্রদান এবং অপটিকস মালিক রবিউল ইসলামকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। চুয়াডাঙ্গা জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দার উপ-পরিচালক আবু জাফর ইকবাল নিজে চোখের চিকিৎসা নিতে গিয়ে ওই ভুয়া এমবিবিএস চক্ষু চিকিৎসকের সন্ধান পায়। তারই সহযোগীতায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়।

দন্ড প্রাপ্ত ভূয়া চিকিৎসক এম.ডি. শামসুর রহমান চুয়াডাঙ্গা শহরের সিএ্যান্ডবি পাড়ার মিজানুর রহমানের ছেলে।
আজ মঙ্গলবার  দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ফকরুল ইসলাম চুয়াডাঙ্গা শহরের আলী হোসেন সুপার মার্কেটের সোহাগ অপটিকসে অভিযান চালায়। এসময় ভূয়া এমবিবিএস চিকিৎসক এমডি শামসুর রহমানের কাছে চক্ষু চিকিৎসা বিষয়ে যোগ্যতার প্রমান পত্র দেখতে চাই। এ সময় তিনি তার চক্ষু চিকিৎসা বিষয়ে যোগ্যতার প্রমান পত্র দেখাতে ব্যর্থ হয়।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ফকরুল ইসলাম জানান, ন্যূনতম এমবিবিএস অথবা বিডিএস ডিগ্রীধারী ব্যতিত অন্য কেউ তাদের নামের পাশে ডাক্তার পদবি ব্যবহার করতে পারবেন না। করলে তা হবে অপরাধ । এজন্য এম.ডি. শামসুর রহমান ভূয়া পদবি ব্যবহার করে রোগীদের  সঙ্গে  প্রতারণার করায় তার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০ এর ২৯ ধারায় তাকে ছয় মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এছাড়া ভূয়া চিকিৎসককে চেম্বার দেওয়ার অপরাধে অপটিকস মালিক রবিউল ইসলামকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন । পরে ভূয়া চিকিৎসককে চুয়াডাঙ্গা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

সময় খুব কম, দেরি করা যাবে না: ড. কামাল

জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত আইনজীবীদের মহাসমাবেশে যোগ দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছেন গণফোরামের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *