সর্বশেষ
Home / অপরাধ-দুর্নীতি / গাংনীতে একটি হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে-বিক্ষোভ মিছিল-সংঘর্ষ : আহত-৪

গাংনীতে একটি হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে-বিক্ষোভ মিছিল-সংঘর্ষ : আহত-৪

মেহেরপুর প্রতিনিধিঃমেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ধানখোলা ইউনিয়নের মহিষাখোলা গ্রামের আনিছুর রহমান মিয়াকে হামলার ঘটনায় প্রতিবাদ সমাবেশ ও মিছিলের সময় দু’গ্রামবাসির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষের ৪জন আহত হয়েছে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি শান্ত করে।গতকাল শুক্রবার বিকেলে ধানখোলা ইউনিয়নের আড়পাড়া বাজারে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।জানা যায়,মহিষাখোলা গ্রামের মৃত শামসুল হক মিয়ার ছেলে নার্সারী মালিক ও স্থানীয় আ.লীগ নেতা আনিছুর রহমান মিয়াকে ১৩ জুলাই বিকেলে হামলা করেন আড়পাড়া গ্রামের সোহেল ও লাল্টুসহ কিছু যুবক।

 

মহিষাখোলা গ্রামের নিজ নার্সারীতে অবস্থানকালে আনিছুর রহমান হামলার শিকার হয়েছিলেন। ওই সময় তার নার্সারীর ম্যানেজার মহিষাখোলা গ্রামের মুনতাজ আলীও হামলার শিকার হয়েছিলেন। হামলাকারী মূলত মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোখলেছুর রহমান মুকুল ও তার ভাই ধানখোলা ইউনিয়ন আ.লীগের নেতা আক্তারুজ্জামান বাবুকে হামলা করতে এসেছিল । ওই হামলার প্রতিবাদ করতে গিয়ে আনিছুর রহমান মিয়া হামলার শিকার হয়েছিলেন বলে বিভিন্ন সূত্র জানায়। হামলাকারীদের শাস্তির দাবীতে গতকাল শুক্রবার বিকেলে হাড়িয়াদহ-মহিষাখোলা বাজারে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশের আয়োজন করে হাড়িয়াদহ ও মহিষাখোলা গ্রামের মানুষ।

 

বিকেলে প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে মহিষাখোলা ও হাড়িয়াদহ গ্রামে শতাধিক মানুষ একটি মিছিল নিয়ে আড়পাড়া বাজারে অবস্থান নেয়। এ সময় মিছিলকারীদের সাথে আড়পাড়া গ্রামবাসীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। পরে তা সংঘর্ষের রুপ নেয়। সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষের ৪জন আহত হয়। আহতরা হলেন-মহিষাখোলা গ্রামের মৃত রবজেল মন্ডলের ছেলে মোক্তার আলী (৫৫) ও ঈমান মন্ডলের ছেলে গোলাম হোসেন (৫০)। এছাড়াও আড়পাড়া গ্রামের ২জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

 

উভয়পক্ষের আহতরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছে বলে জানা যায়। মিছিলকারীরা আড়পাড়া বাজারের কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। এদিকে সংঘর্ষের খবর পেয়ে গাংনী থানা পুলিশের কয়েকটিদল তাৎক্ষনিকভাবে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

 

বর্তমান এলাকা শান্ত রাখতে এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। মহিষাখোলা গ্রামের আহত আনিছুর রহমান মিয়া জানান,আমাকে হামলার ঘটনায় শুক্রবার বিকেলে হাড়িয়াদহ-মহিষাখোলা বাজারে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে এলাকাবাসি। পরে একটি শান্তিপূর্ণ মিছিল আড়পাড়া বাজারের দিকে গেলে,আড়পাড়ার গ্রামের শমসের আলী,সোহেল,লাল্টুর নেতৃত্বে তাদের পোষা সন্ত্রাসীদের নিয়ে হামলা করে।

 

এ ব্যাপারে আড়পাড়া গ্রামের সিদ্দিকুর রহমান মেম্বার জানান,মহিষাখোলা ও হাড়িয়াদহ গ্রামের কিছু মানুষ আড়পাড়া বাজারের মিছিল সহকারে এসে বাজারের কয়েকটি দোকান ভাঙচুর শুরু করে। এ সময় বাজারের লোকজন ও গ্রামবাসি প্রতিরোধ করতে গেলে,হাতা-হাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় আড়পাড়া গ্রামের কয়েকজন মানুষ আহত হয়েছে।
গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্রনাথ সরকার জানান,সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশের কয়েকটিদল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। এলাকার নিরাপত্তা যাতে বিঘিœত না হয়। সেজন্য হাড়িয়াদহ-মহিষাখোলা বাজার ও আড়পাড়া বাজারে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

চুয়াডাঙ্গায় এডাব আয়োজনে সম-নাগরিকত্ব শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

রিফাত রহমান :বাংলাদেশে কর্মরত বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা সমুহের সমন্বয়কারী প্রতিষ্ঠান এডাব চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার আয়োজনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *