সর্বশেষ
Home / দুর্ঘটনা / কুড়ুলগাছিতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত অসহায় রোজিনা অর্থাভাবে জীবন মৃত্যুর সন্ধীক্ষনে: জেলা প্রশাসকের সুদৃষ্টি কামনা

কুড়ুলগাছিতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত অসহায় রোজিনা অর্থাভাবে জীবন মৃত্যুর সন্ধীক্ষনে: জেলা প্রশাসকের সুদৃষ্টি কামনা

মেহেদী হাসান মিলন: চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার কুড়ুলগাছি পশ্চিম পাড়ার হত দরিদ্র  লাভলুর স্ত্রী ২ সন্তানের জননী রোজিনা  (৩৫) পেটের তাগিদে আনুমানিক  গত ২ মাস পূর্বে কার্পাসডাঙ্গার সিরাজুলের ছেলে জহিরুলের আলমসাধুতে চড়ে মেহেরপুর জেলায় সবজি তোলার দিন মুজুরের কাজে যাচ্ছিল।

আলমসাধুটি নাটুদাহ তালসারী মোড়ের কাছে পৌঁছালে পিছন দিক থেকে আসা গচিয়ার পাড়া মোড়ের বর্ষা ইট ভাটা মালিক চন্দ্রবাস গ্রামের পল্টুর ট্রাক্টর তার আনাড়ি ড্রাইভার চন্দ্রবাস গ্রামের নুরু কুলুর ছেলে সালাম কুলু পিছন থেকে ধাক্কা মারে আলমসাধুতে।

আলম সাধু থেকে ছিটকে পড়ে যায় রোজিনা।ট্রাক্টরটির চাকা উঠে যায় রোজিনার দুপায়ের উপরে।ক্ষতবিক্ষত ভাবে আহত হয় রোজিনা। আহত রোজিনাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে আলমসাধু চালক জহিরুল।তারপর সেও সেখান থেকে সটকে পড়ে।

রোজিনা সড়ক দূর্ঘটনায় আহতের খবর পেয়ে তার দরিদ্র পরিবার হাসপাতালে ছুটে যায়।প্রয়োজনীয় ওষুধ কিনতে গিয়ে যেন মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ে রোজিনার স্বামী।রোজিনার দুপায়ে ইনফেকশন দেখা দেয় অর্থভাবে সুচিকিৎসার কারনে।রোজিনাকে বাঁচাতে তার স্বামী রাজশাহী মেডিকেল কলেজে তাকে ভর্তি করে।

রোজিনার চিকিৎসা ব্যায় মেটাতে তার অংশীদারিত্বের জমি তার মাথা গোঁজার শেষ সম্বল তার বসতের ১ কাঠা জমি সেটাও বিক্রি করে দেয়।এত কিছুর পরেও ভাটা মালিক পাষান পল্টু মিয়া ও তার ড্রাইভার সালাম কলু  একটিবারের জন্যও রোজিনার কোন খোঁজ নেইনি।

রোজিনার পরিবারের লোকজন পল্টু মিয়ার কাছে বারবার ধর্না দিলেও তাতে মানবিকতা গলেনি পল্টু মিয়ার।বর্তমানে রোজিনার চিকিৎসার অভাবে মরতে বসেছে অবস্থা।তার স্বামী দুসন্তানের দিকে তাকিয়ে  তার স্ত্রীকে বাঁচাতে বাজারে  দ্বারে দ্বারে সাহায্য তুলে একবার ৪ হাজার টাকা যোগার করেছে।বর্তমানে রোজিনার চিকিৎসার খরচ যোগাতে তার স্বামী একেবারে পাগলপ্রায় অবস্থা। হয়তো চিকিৎসাভাবে মরতে পারে রোজিনা।

রোজিনা ও তার স্বামী কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে বলেন আমাদের এ অবস্থায় কেউ আমাদের খোঁজ নেইনি।কেউ সাহায্যর জন্য পাশে দাড়ায়নি। কোন জনপ্রতিনিধি আমাদের সাহায্য করতে এগিয়ে আসেনি আমাদের কেউ নেই বলে আমরা গরীব বলে।

বিষয়টির প্রতি সুনজর দিয়ে হতদরিদ্র রোজিনাকে বাঁচাতে তার সুচিকিৎসার জন্য যাবতীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করতে চুয়াডাঙ্গা জেলার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস সহ  জনপ্রতিনিধি ও বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল সহ এলাকাবাসী

প্রিন্ট

About এডমিন

Check Also

আন্দুলবাড়ীয়ায় নব-নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান-মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এলাকাবাসীর ভালোবাসা ও ফুলের শুভেচ্ছায় সিক্ত

আন্দুলবাড়ীয়া প্রতিনিধি: সদ্য অনুষ্ঠিত তৃতীয় ধাপে পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচনত্তোর জীবননগর উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *